হোমরিভিউস

ভবেশ যোশী রিভিউঃ হর্ষবর্ধন কাপুরের কেরিয়ার শুরুর জন্য সঠিক সিনেমা নয়

  | June 01, 2018 12:57 IST
পড়ুন | Read In
Bhavesh Joshi Superhero Review

ভবেশ যোশী সুপারহিরোঃ সিনেমার স্থির চিত্র (কার্টেসি ইউটিউব) 

ভবেশ যোশী সুপারহিরো মুভি রিভিউঃ এপিক অ্যাম্বিশন এবং টেকনিকাল স্ট্রেন্থ থাকা সত্ত্বেও হর্ষবর্ধন কাপুরের সিনেমা সুপার ছাড়া আর সব কিছুই

কাস্ট: হর্ষবর্ধন কাপুর, নিশিকান্ত কামাট, প্রিয়াংশু পাইন্যুলি  
পরিচালক: বিক্রমাদিত্য মোটওয়ানে
রেটিং: দুই স্টার (পাঁচের মধ্যে)
ভবেশ যোশী সুপারহিরো সিনেমার শেষের দিকে পৌঁছে ওয়াটার স্ক্যামের মূল পাণ্ডা রানা (নিশিকান্ত কামাট) কেন্দ্রীয় চরিত্র সিকান্দার খান্নাকে (হর্ষবর্ধন কাপুর) গ্রিক মিথ অফ ইরাকাস বলেছেন। বিক্রমাদিত্য মোটওয়ানে পরিচালিত চতুর্থ সিনেমার সমস্যা হল এটা করতে চেয়েছে অনেক কিছুই কিন্তু ঠিক মতো কিছুই করে উঠতে পারেনি।  
ভবেশ যোশী সুপারহিরো সিনেমার গল্প তিন বন্ধুকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে যারা 2011 সালের কোরাপশন মুভমেন্টে সামিল হয়েছিল। তারা ইনসাফ নামক একটা ক্যাম্পেন লঞ্চ করে যেখানে সাধারণ পথচারীরা ট্রাফিক রুল অমান্য করলে বা রাস্তার ধারে দেওয়ালে প্রস্রাব করলে তাদের শাস্তি দেওয়া হত। এই সিনেমা সব ঠিক বিষয়েই প্রশ্ন তুলেছে কিন্তু যেন দর্শকদের মন ছুয়ে যেতে ব্যর্থ হয়েছে।
 
bhavesh joshi youtube

ভবেশ যোশী সুপারহিরো মুভি রিভিউঃ সিনেমার স্থির চিত্র (কার্টেসি ইউটিউব) 

এই সিনেমার চিত্রনাট্য এবং টেকনিকে অনেক প্লাস পয়েন্ট থাকলেও তা এই সিনেমাকে সঠিক সময়ে সাহায্য করতে ব্যর্থ হয়েছে। ভবেশ যোশী সুপারহিরো যেন অনেক বেশী অনিশ্চিত,  সুস্থভাবে চলার বদলে যেন বড্ড বেশী চড়াই উতরাই এই সিনেমায়।  

মোটওয়ানে, অনুরাগ কাশ্যপ এবং অভয় করান্নের লেখা এই সিনেমার গল্প নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয় কিন্তু গল্পের শেষটা যেন খুব একটা মন ছুঁতে পারলো না। এখানে একটা সুপারহিরো ফিল্মকে শীর্ষ স্থানে পৌঁছোবার প্রচেষ্টা করা হয়েছে- মুম্বাইয়ের মানুষদের মিউনিসিপালিটির জল সাপ্লাইয়ে যে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় সেখানে পুলিশ-রাজনীতিবিদ-মাফিয়া সকলের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে এই সিনেমার হিরো রুখে দাঁড়াবার চেষ্টা করেছে।
 
bhavesh joshi youtube

ভবেশ যোশী সুপারহিরো মুভি রিভিউঃ সিনেমার স্থির চিত্র (কার্টেসি ইউটিউব) 

এই সিনেমার একমাত্র মহিলা হিরোর প্রেমিকা স্নেহার চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রেয়া সাবারওয়াল। কিন্তু এই সিনেমায় তাঁরা চরিত্রের বিশেষ কোনও ভূমিকা নেই।  
 
bhavesh joshi youtube

ভবেশ যোশী সুপারহিরো মুভি রিভিউঃ সিনেমার স্থির চিত্র (কার্টেসি ইউটিউব) 

এই সিনেমায় হিরোর দুই বন্ধু হল ভবেশ যোশী (প্রিয়াংশু পাইন্যুল) এবং সুপারহিরো অবসেসড গ্রাফিক নভেলিস্ট রজত (আশীষ ভার্মা)। ভবেশই ওয়াটার স্ক্যাম প্রসঙ্গকে সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলে তুলে ধরার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।  যার ফলে তাকে বিভিন্নভাবে বিপক্ষের রোষের মুখে পড়তে হয়। ভারত মাতা কি জয়- বলা একদল জনতা তাকে দেশদ্রোহী আখ্যা দিয়ে পাকিস্তানে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়।
ভবেশ যোশী সুপারহিরো সিনেমায় সাম্প্রতিক রাজনৈতিক অবস্থার ওপর আলোকপাত করা হয়েছে। দুষ্কৃতিদের দাঙ্গা, রাজনৈতিক দলগুলির মিডিয়াকে ম্যানিপুলেট করা সমস্ত কিছুই এই সিনেমায় দেখানো হয়েছে কিন্তু তা শুধুমাত্র হিরো তার প্রিয় বন্ধুর মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে সচেষ্ট হওয়ার প্রেক্ষিতেই।  সে একটা মুখোশ পড়ে, নিজের মৃত বন্ধুর পরিচয় নিয়ে, মার্শাল আর্ট রপ্ত করে কালপ্রিটদের শায়েস্তা করতে উদ্যত হয়- ভাগ্যিস রূপক, বাস্তবে নয়!
 
এই সিনেমার শেষে এসে আমরা বুঝতে পারি- গত আড়াই ঘণ্টা ধরে এই সিনেমা আমাদের একটাই বার্তা দিতে চেয়েছে যে যেকোনো পরিস্থিতিতেই সব সময় সত্যি কথা বলা উচিত।   

সব শেষে একটাই কথা বলা যায়, ভবেশ যোশী সুপারহিরো হর্ষবর্ধন কাপুরের কেরিয়ারের জন্য সঠিক শুরু হয়নি।

বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement