হোম

নাট্য সমালোচনা; দৈর্ঘ্যই বাহুল্য, গুণমানে সত্যিই ‘মহাভারত’

  | June 04, 2019 21:21 IST (কলকাতা)
Bengali Drama

পাণ্ডবদের ১২ বছরের বনবাস আর এক একবছরের অজ্ঞাতবাস শেষ। বিরাট রাজের কাছে তাঁদের পরিচয় আর অজানা নয়। অভিমন্যুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছে বিরাট-কন্যা উত্তরার। কিন্তু পঞ্চপাণ্ডব পড়েছেন মহা ফাঁপড়ে। তাঁদের আপাতত একটাই প্রশ্ন, এবার কী হবে? হস্তিনাপুরে তাঁরা কি ফিরবেন? কৌরবরা কি সসম্মানে জায়গা ছেড়ে দেবে? নাকি এভাবেই পথে পথে ফিরতে হবে মহাবীরদের! নাটক শুরু এই জিজ্ঞাসা নিয়েই।

নাটক: মহাভারত

সৃজনে: অর্ণ মুখোপাধ্যায়

লিখনে: শিব মুখোপাধ্যায়

প্রযোজনা: নটধা


অভিনয়ে: সোহিনী সরকার, অর্ণ মুখোপাধ্যায়, কৌশিক চট্টোপাধ্যায়, সাধনা মুখোপাধ্যায়, উপাবেলা, রুদ্ররূপ

রেটিং: ৩.৫/৫

শিরোনামটুকুই সমালোচনা (Review)। বাকি টুকিটাকি ফাঁকের কথা পরে পূরণ হবে। তার আগে মহাভারত-এর এক ঝলক। নাটকের (Mahabharat) শুরুতেই সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পাণ্ডবদের ১২ বছরের বনবাস আর এক একবছরের অজ্ঞাতবাস শেষ। বিরাট রাজের কাছে তাঁদের পরিচয় আর অজানা নয়। অভিমন্যুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছে বিরাট-কন্যা উত্তরার। কিন্তু পঞ্চপাণ্ডব পড়েছেন মহা ফাঁপড়ে। তাঁদের আপাতত একটাই প্রশ্ন, এবার কী হবে? হস্তিনাপুরে তাঁরা কি ফিরবেন? কৌরবরা কি সসম্মানে জায়গা ছেড়ে দেবে? নাকি এভাবেই পথে পথে ফিরতে হবে মহাবীরদের! নাটক শুরু এই জিজ্ঞাসা নিয়েই।

পঞ্চপাণ্ডবদের এই প্রশ্ন কৌরবদের মনেও। তাই প্রথম দৃশ্যেই দুঃস্বপ্ন দেখে জেগে ওঠেন গান্ধারি। কেঁপে ওঠেন পঞ্চপাণ্ডবের কথা ভেবে। অন্ধ স্বামী ধৃতরাষ্ট্রের কাছে ভেঙে পড়েন দুর্যোধন, দুঃশাসন সহ ১০০ সন্তানের অজানা ভবিষ্যত নিয়ে। ধৃতরাষ্ট্র তখনকার মতো গান্ধারিকে স্বান্তনা দিলেও পরের দিন আলোচনায় বসেন বিদুর, শকুনি, ভীষ্ম, দ্রোণাচার্যকে নিয়ে। সবার একটাই প্রশ্ন, দুর্যোধন কি রাজ্য ছেড়ে দেবে পাণ্ডবদের হাতে? 

বলার আগে ভাবুন, কী বলতে চাইছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে পরামর্শ অপর্ণা সেনের

দুর্যোধনের কাছ থেকে যথারীতি উত্তর আসে, তিনি ছাড়বেন না। এদিকে দ্রৌপদী চান ভালো কথায় কৌরব না মানলে এবার রণসজ্জায় সাজুক পঞ্চপাণ্ডব। যদিও যুধিষ্ঠীর, কুন্তি এবং কৃষ্ণ চান, শান্তির পথ ধরে এগোক কথা। কিন্তু কৃষ্ণের দৌত্য ব্যর্থ হয়। দুর্যোধন প্রত্যেকের সঙ্গে দেখা করে নিজের ভেতরকে সামনে আনেন। ধীরে ধীরে হস্তিনাপুর রাজ্যের প্রত্যেকটা মানুষ যেন প্রতিনিধি হয়ে ওঠে দুর্যোধনের। এরপরে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ শুধুই সময়ের অপেক্ষা। এখানেই নাটক শেষ।

এটুকু পড়ে অনেকের মনে হতেই পারে, এ তো সবার জানা। কিন্তু অনেক অজানাও এই নাটকে লুকিয়ে আছে। যা নাটক ‘মহাভারত'-এর পরম সম্পদ। যেমন, ধৃতরাষ্ট্র দুর্যোধনকে আদর করে সুযোধন ডাকতেন, ক-জন জানেন! কিংবা দৌপ্রদীর হাতের বালা দিয়ে কর্ণকে বশ করার চেষ্টা করেছিলেন কৃষ্ণ। সেই কর্ণ, যিনি ভরা সভায় দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণের সময় চুপ থেকেও পরে নিভৃত অবকাশে তাঁরই ছবি আঁকতেন! অথবা, দুর্যোধন স্ত্রী ভানুমতীকে ভালোবেসেও যেন বাসতে পারেননি। তিনিও দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ পর্বকে হস্তিনাপুরের কলঙ্কজনক অধ্যায় বলে মনে করেন। কেবলমাত্র ভাই দুঃশাসনকে বাঁচাতে তিনি চুপ করেছিলেন সভায়! তিনিও শুধুই নিজের অস্তিত্ত্ব বাঁচাতে যুদ্ধ চান। তাই সিংহাসনে না বসেও রাজা ধৃতরাষ্ট্রের থেকে দূরদ্রষ্টা হিসেবে অনেক এগিয়ে তিনি। আর এই খুঁটিনাটি দেখাতে গিয়েই নাটক মহাভারত দৈর্ঘ্যে মহাভারতে পরিণত হয়েছে। 

আমি চাই দর্শক আমার আসল নাম ভুলে যাক: জয়া এহসান

এবার আসা যাক বাকি ফাঁকে। সেগুলি যদিও খুবই সামান্য। দুর্যোধন রূপী অর্ণ মুখোপাধ্যায় যতটাই অভিনয়ে বলিষ্ঠ তাঁর স্ত্রী ভানুমতী ততটা নন। যদিও তাঁর অবকাশ কম। তবু যেটুকু ছিলেন, পারতেন নিজেকে আরও একটু মেলে ধরতে। একটি দৃশ্যে দুর্যোধন-কৃষ্ণের নাচের ছন্দে দ্বন্দ্ব প্রকাশ অসামান্য। কিন্তু দুর্যোধনের নাচ নির্দিষ্ট সময়ের পর অল্প বাহুল্য মনে হয়েছে। একই সঙ্গে মন ভুলিয়েছে, কৃষ্ণ-দ্রৌপদীর খুনসুটি, কর্ণকে দুর্বল করতে দ্রৌপদীর বালা নিয়ে কৃষ্ণের মৃদু ঝঙ্কার তোলা। জীবন্ত মনে হয়েছে ধৃতরাষ্ট্রের হাহাকার। শকুনির কূটনীতি এবং পরে তারই জালে জড়িয়ে অসহায়তা। বাহুল্য ছাড়া সজ্জা অদ্ভুতভাবে প্রতিনিধিত্ব করেছে সেযুগের। নাচের ছন্দে, নাটকীয়তার সঙ্গে পট পরিবর্তন আলাদা মাত্রা যোগ করেছে। মহাভারতের (Mahabharat) যাবতীয় খুঁটিনাটি আমাদের রোজের ঘরের ঘটনা। সেই স্বাদ নাটক দেখতে বসে বারেবারে অনুভব করতে বাধ্য দর্শক। তবু সবার, সবকিছুর মধ্যে যদি মনে রাখতেই হয় কাউকে তবে সেই তালিকায় উঠে এসেছেন অর্ণ (Arna Mukherjee) আর দ্রৌপদী রূপী সোহিনী সরকার (Sohini Sorkar)। এঁদের তুলনা এঁরা নিজেই।

বিশেষ করে অর্ণ। কবি মধুসূদন দত্তের মতো যিনি দুর্যোধনকে খলনায়ক থেকে নায়কে রূপান্তরিত করেছেন। ভালোয়-মন্দয় মেশানো, রক্তমাংসের এই দুর্যোধন তাই ছাপ রেখে যায় মনে।   


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement