হোমবলিউড

‘‘পাপারাৎজিদের সরাতে আমি পুলিশ ডাকিনি,’’ দাবি সইফ আলি খানের

সইফ আলি খান এমনিতে বেশ শান্তশিষ্ট বলে পরিচিত। কিন্তু গত সপ্তাহে তিনি প্রচণ্ড রেগে গিয়েছিলেন। সইফ, করিনা এবং তৈমুর বিমানবন্দর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। সে সময় পাপারাৎজি তাদের ঘিরে ধরে এবং ক্রমাগত ক্যামেরার ঝলকানি চলতেই থাকে। সেই সময় সইফ মেজাজ হারিয়ে ফেলেছিলেন।

  | April 21, 2019 12:17 IST (নিউ দিল্লি)
Saif Ali Khan

মুম্বইয়ে তৈমুরকে সঙ্গে নিয়ে সইফ আলি খান

Highlights

  • ‘ও তারকা নয়, শিশু,’ বলেন সইফ আলি খান
  • সইফ বলেছেন, তিনি পুলিশ ডাকেননি
  • পুলিশ এসে পাপারাৎজিদের সরিয়ে দেয় সইফের বাড়ির সামনে থেকে

সম্প্রতি অভিযোগ উঠেছিল যে সইফ আলি খান নিজের মুম্বইয়ের বাড়ির বাইরে পাপারাৎজিদের হঠানোর জন্য পুলিশের হস্তক্ষেপ চেয়েছিলেন। তবে আইএএনএস-কে একটি সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় ৪৮ বছর বয়সী অভিনেতা স্পষ্ট ভাবে সেই অভিযোগ অস্বীকার করেন। তবে পাপারাৎজি যে ভাবে তৈমুরের প্রতি অবশেসড হয়ে পড়ছে তা নিয়ে তিনি যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সইফ বলেন, ‘‘এটা ঠিকই যে পুলিশ এসে পাপারাৎজিদের সরিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। কারণ, তারা কারও কাছ থেকে অভিযোগ পেয়েছিল। তবে সেই অভিযোগকারী আমি নই। সত্যি বলতে কি ক্রমাগত বাড়ির বাইরে পাপারাৎজির উপস্থিতি আমারও ভালো লাগে না। কারণ তাদের বেশিরভাগই সব সময়ে তৈমুরের ছবি তোলার জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন। ক্রমাগত একটা বাচ্চাকে এ ভাবে বিরক্ত করা ঠিক নয়। তবে আমি কোন অভিযোগ করিনি কারণ আমি কারো কাজের অধিকারের মধ্যে হস্তক্ষেপ করতে চাই না।''

ষোড়শী কন্যার জন্মদিন আজ, নায়সাকে নিয়ে কী লিখলেন মা কাজল?

সইফ আলি খান এমনিতে বেশ শান্তশিষ্ট বলে পরিচিত। কিন্তু গত সপ্তাহে তিনি প্রচণ্ড রেগে গিয়েছিলেন। সইফ, করিনা এবং তৈমুর বিমানবন্দর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। সে সময় পাপারাৎজি তাদের ঘিরে ধরে এবং ক্রমাগত ক্যামেরার ঝলকানি চলতেই থাকে। সেই সময় সইফ মেজাজ হারিয়ে ফেলেছিলেন। পরে অবশ্য তিনি বলেছিলেন, ‘'ক্যামেরাপার্সনদের এটা কাজ আমি বুঝতে পারি। কিন্তু তৈমুর মাত্র দু'বছরের একটি বাচ্চা তাই মিডিয়ার এত মনোযোগ তার পক্ষে ভালো নয়।'' পরে ফটোগ্রাফারদের প্রতি সইফ আবেদন করেন, ‘‘ও শুধুমাত্র একটা ছোট বাচ্চা। দয়া করে ওকে এখন রেহাই দিন।''


এমনকি সইফ সে দিন রাগের মাথায় বলে উঠেছিলেন, ‘‘এ বার থামো। বাচ্চাটাকে কি অন্ধ করে দেবে?'' সে দিন বিমানবন্দর থেকে বাড়ি ফেরার সময় তৈমুর বাবার কাঁধে চড়ে বসেছিল। আর পাপারাৎজি ক্রমাগত তার ছবি তুলে চলেছিল। সে দিন পাপারাৎজি সইফ এবং করিনাকেও পোজ দিতে বলায় সইফ বিরক্ত হয়ে বলেছিলেন, ‘‘এই সব পোজ দিতে খুব অদ্ভুত লাগে। আপনাদের ছবি তুলতে হলে এমনি তুলে নিন।''


ফর্সা হওয়ার ক্রিমের প্রচারে না! ২ কোটি টাকার প্রস্তাব ফেরালেন এই অভিনেত্রী

সোশ্যাল মিডিয়ায় তৈমুরের জনপ্রিয়তা প্রবল। এ নিয়ে আগেও উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন করিনা কাপুর। তিনি বলেছিলেন, ‘‘আমি আশা করি তৈমুর একটা সুস্থ জীবন পাবে। নিজেদের বিভিন্ন ইন্টারভিউতে সইফ এবং করিনা বলেছিলেন, তারা একজন সেলিব্রিটি এটা ঠিক কিন্তু তৈমুর এখন অনেক ছোট। এই মনোযোগে তার শৈশব ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।''

সম্প্রতি পিঙ্কভিলাকে একটি ইন্টারভিউ দেওয়ার সময়ে সইফ বলেন, ‘‘আমার বিশ্বাস আমার বাচ্চার যদি ক্ষতি হয় তা হলে ক্রমাগত ক্যামেরার ঝলকানি বন্ধ করার অধিকার আমার রয়েছে। কারণ এ ভাবে ক্রমাগত ক্যামেরার ফ্ল্যাশ চলতে থাকলে, ওর চোখের ক্ষতি হবে। আমরা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এটা আমি মেনে নিচ্ছি। কিন্তু তার মানে আমাদের ছেলেকেও তার মূল্য চোকাতে হবে এমনটা তো হতে পারে না।'' চলতি বছরের ডিসেম্বরে তিন বছরে পা দেবে তৈমুর।


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
 
Advertisement
Advertisement