হোম

সিনিয়রদের সঙ্গে পাল্লা দিতে পুজোয় আসছে মৈনাকের ‘গোয়েন্দা জুনিয়র’

  | September 19, 2019 08:28 IST (কলকাতা)
‘goyenda Junior’

পুজোয় আসছে গোয়েন্দা জুনিয়র ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়

মুখে এখনও শিশুর সারল্য। মগজ কিন্তু ভীষণ ধারালো। নামেই জুনিয়র। তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ আর রহস্যভেদ ক্ষমতায় যেকোনও সিনিয়র গোয়েন্দাকে। পরীক্ষার আগে পড়ার বই ফেলে সে গোগ্রাসে ব্যোমকেশ সমগ্র গেলে।

মুখে এখনও শিশুর সারল্য। মগজ কিন্তু ভীষণ ধারালো। নামেই জুনিয়র। তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ আর রহস্যভেদ ক্ষমতায় যেকোনও সিনিয়র গোয়েন্দাকে। পরীক্ষার আগে পড়ার বই ফেলে সে গোগ্রাসে ব্যোমকেশ সমগ্র গেলে। আর খাতায় গোয়েন্দাগিরির নেশায় যে এঁকে আসে প্রিয় গোয়েন্দার ছবি। সেই ছেলে তার স্কুলের বান্ধবীর মারফত সংস্পর্শে আসে তার বাবা গোয়েন্দা সঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের। টুকি সেই জুনিয়র গোয়েন্দার ফিয়াসেঁ। যদিও টুকির তাকে মোটেই পছন্দ নয়। কিন্তু বিক্রমকে কাছে পেয়ে সঞ্জয় বুঝতে পারেন ছেলেটির মধ্যে পার্টস রয়েছে। ভালো গোয়েন্দা হয়ে ওঠার। এইভাবেই চুলেস্পাইক করা বিক্রম কালেদিনে সহকারি হয়ে ওঠে জন্মদিনে ঘটে যাওয়া এক মৃত্যু রহস্যের কিনারা করতে গিয়ে। কতটা সফল হয় সে গোয়েন্দাগিরিতে? সমস্ত রহস্য লুকিয়ে মৈনাক ভৌমিকের (Mainak Bhowmick) দ্বিতীয় গোয়েন্দা থ্রিলার গোয়েন্দা জুনিয়র (‘Goyenda Junior') ছবিতে। যা মুক্তি পাবে পরশু অর্থাৎ ২০ নভেম্বর। প্রযোজনায় এসভিএফ।

0nhjn8v8

Durga Puja 2019: মিমি-নুসরত-শুভশ্রীকে নিয়ে ‘রাজ'কীয় পুজো উপহার ‘আসে মা দুর্গা সে'

বর্ণ পরিচয় ছবির সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময়েই মৈনাক পাকা গোয়েন্দার মতোই ছোট্ট সূত্র দিয়েছিলেন, তাঁর পরের ছবিটাও গোয়েন্দা থ্রিলার হবে। কিন্তু সেটা যে বইয়ের পাতা থেকে উঠে আসা কোনও বিখ্যাত গোয়েন্দা নন, জানাননি ভুলেও। মৈনাকের মুখোমুখি হয়ে তাই প্রথম প্রশ্ন ছিল, 'সমসাময়িক সম্পর্ক নিয়ে ছবি বানানো কি পরিচালক একেবারেই ছেড়ে দিলেন? উত্তরে মৈনাকের স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে জবাব, গোয়েন্দা গল্পেও কিন্তু সম্পর্কের কথা থাকছে। গোয়েন্দাগিরির পাশে একটি ছেলের বয়ঃসন্ধির সময় বেড়ে ওঠা, তার মানসিক, শারীরিক পরিবর্তন দেখানো হবে। তাছাড়া, সম্পর্কের ছবি অনেক করেছি। এবার না হয় স্বাদ বদলালাম।'

933cdtdo


জেনারেশন আমি ছবির পুরোনো টিমকেই আবার এই ছবিতে। কোনো বিশেষ কারণ? পরিচালক এবারেও স্বচ্ছ্ব, এই টিমটাকেই উপযুক্ত মনে হয়েছে। বিশেষ করে শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, ঋতব্রত মুখোপাধ্যায় আর অনুশা বিশ্বনাথনকে গোয়েন্দা সঞ্জয়, বিত্রম আর টুকির চরিত্রে ভেবেই গল্পটা লিখেছি। সঙ্গে বাবা-ছেলের কেমিস্ট্রি তো বাড়তি পাওনা। সমরেশ মজুমদারের গোয়েন্দা গোগোল ছিল, ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের পঞ্চপাণ্ডব ছিল। তাদের না নিয়ে কেন নিজের গল্প নিয়ে ছবি? পরিচালকের প্রাঞ্জল উত্তর, বইয়ের পাতার বিখ্যাত চরিত্র নয়, চেয়েছিলাম এমন একটি গোয়েন্দা চরিত্র এই প্রজন্মকে উপহার দেব, যে এই প্রজন্মের মতো। একদম পাশের বাড়ির ছেলে। বিত্রম তেমনটাই। পুজোয় আরও গোয়েন্দা আসছে। তাদের ভিড়ে খুদে গোয়েন্দা হারিয়ে যাবে না তো! মৈনাকের আত্মবিশ্বাসী জবাব, এর জন্যেই তো একটু আগেই চলে আসছে গোয়েন্দা জুনিয়র।


ucndlpuo

কেক কেটে জমাটি আড্ডায় উদযাপন ‘গোত্র'-র ২৫ দিন

স্বাভাবিকভাবেই এরপর মুখোমুখি সিনিয়ার গোয়েন্দা, জুনিয়র গোয়েন্দা আর তার ফিয়াসেঁর। আড্ডার মুডে শান্তিলাল জানালেন, 'এই ছবির হিরো তো ঋতব্রত। আমি ওকে জাস্ট গাইড করেছি গোটা ছবিতে।' সঙ্গে সঙ্গে মজা করে ঋতব্রতর উত্তর, 'বাবা গাড়ি চালিয়ে গেছেন। আমি ছুটে-দৌড়ে অ্যাকশন করেছি।' আর চুপ থাকতে না পেরে এবার অনুশার নালিশ, 'শান্তিকাকু গোটা ছবি জুড়ে ভয়ানক অত্যাচার চালিয়েছেন। আমায় শাসন করেছেন, অনস্ক্রিন বাবা হয়ে। মজাও করেছেন। আর জোর করে চেষ্টা করেছেন বিক্রমের সঙ্গে আমায় জুড়ে দিতে। যাতে আমি বাকি বয়ফ্রেন্ডদের পাল্লায় পড়ে গোল্লায় না যাই!

tr4kl4k


একই সঙ্গে এই ছবি এক গোয়েন্দা পরিবারের ছবি। ছবি করার সময় মৈনাকদাকে অনেক সময় নিজের মত জানিয়েছি। সঙ্গে সঙ্গে মেনে নিয়ে আমায় অভিনয়ের সুযোগ দিয়েছেন। এখন দর্শকরা হলে এসে আমাদের গোয়েন্দাগিরি দেখলেই পরিশ্রম সার্থক।'


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement