হোমমিউজিক

বিদায় মাসে কবিগুরু স্মরণে আরেক কবি: জন্মদিনে রবি কবি বন্দনায় গুলজার

  | August 08, 2019 18:53 IST (কলকাতা)
Gulzar

কবিগুরুকে স্মরণ আরেক কবি গুলজারের

সেই কবিতা পড়ে আমূল বদলে গেল তরুণের জীবন। তার থেকেও বড় কথা, একজন বাঙালির মতোই তিনি অনুভব করেছিলেন, রবি কবিকে হৃদয়ে জায়গা দিতে গেলে তাঁর ভাষায় তাঁকে জানতে হবে, পড়তে হবে। সেই তাগিদে সেই পাঞ্জাবি তরুণ যত্ন নিয়ে শিখলেন বাংলা ভাষা।

'শ্রাবণের ধারার মতো পড়ুক ঝরে', 'আমার পরাণ যাহা চায়', 'ভালো যদি বাসো সখী', 'মি একটু কেবল বসতে দিও পাশে', 'আমি জেনেশুনে বিষ করেছি পান', 'কাঁদালে তুমি মোরে'র মতো গান যদি অন্য ভাষায় শোনেন, কান জুড়োবে? তেমনি দীপিকা, লিপিকা, গীতাঞ্জলি যদি ভিন্ন ভাষায় পড়তে হয়, কবিতার রস কোথায় যেন পথ হারায়। এই অনুভূতি শুধুই বাংলা বা বাঙালির নয়। ভিন্ন ভাষী কবির। যদিও তখন তিনি কবি নন। অল্প বয়সের তরুণ। অন্যদের মতোই কমিকস পড়তে ভালোবাসতেন। আচমকাই তাঁর হাতে এসেছিল বিশ্বকবির গার্ডেনার ( "Gardener")। যেখানে ইংরেজিতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের (Rabindra Nath Tagore) বাংলা কবিতার তর্জমা করেছিলেন বেশ কিছু নামী কবি।

বর্ষার সন্ধ্যায় মিলেমিশে একাকার কবিগুরুর শান্তিনিকেতন আর তিলোত্তমা

সেই কবিতা পড়ে আমূল বদলে গেল তরুণের জীবন। তার থেকেও বড় কথা, একজন বাঙালির মতোই তিনি অনুভব করেছিলেন, রবি কবিকে হৃদয়ে জায়গা দিতে গেলে তাঁর ভাষায় তাঁকে জানতে হবে, পড়তে হবে। সেই তাগিদে সেই পাঞ্জাবি তরুণ যত্ন নিয়ে শিখলেন বাংলা ভাষা। পড়ে ফেললেন রবীন্দ্রনাথের সমস্ত লেখা। তারপর কবিকে আত্মস্থ করলেন নিজের মধ্যে। দীক্ষা নিলেন রবি মন্ত্রে। তাঁর প্রাণের ঠাকুর হয়ে উঠলেন রবীন্দ্রনাথ। কবির প্রভাবে বদলে গেল সেই তরুণের জীবনধারা, দর্শন, চিন্তাভাবনা। তিনি গুলজার (Gulzar)। হিন্দি সিনে দুনিয়ার অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র। বহু অন্য ধারার ছবির পরিচালক, গীতিকার, এবং হিন্দি-উর্দু  ভাষার জনপ্রিয় কবি।

j35pg0j8


কবিগুরুর লেখনির সংস্পর্শে আসার পর থেকে গুলজারের প্রেমে-শয়নে-স্বপনে-জাগরণে শুধুই রবীন্দ্রনাথ (Rabindra Nath Tagore)। তাঁর ছবি তৈরির ভাবনাতেও প্রভাব পড়েছে কবির। এক সাক্ষাৎকারে অকপটে স্বীকার করেছিলেন এই ভিন্ন ভাষী কবি। জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে লাইট-সাউন্ড-এর হিন্দি চিত্রনাট্য লেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল গুলজারকে। সেই স্ক্রিপ্ট পড়েছইলেন স্বয়ং অমিতাভ বচ্চন। গুলজার নিজেও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনেক কবিতা পরে হিন্দিতে লিখেছেন। এভাবে যিনি রোজের জীবনে রবীন্দ্রপুজো করে চলেছেন আজও আগামী ১৮ অগাস্ট সেই কবি গুলজারের জন্মদিন। শ্রাবণ মাসে এক কবির যাওয়া আর আরেক কবির আসা উপলক্ষ্যে, দুই কবি মুখোমুখি হচ্ছেন টু পোয়েটস অনুষ্ঠানে। আয়োজনে দ্য ড্রিমার্স।

গানে শ্রাবণী, কথনে কৌশিক...বিদায় মাসে কবি-স্মরণ প্রেমের পথ ধরে

জ্ঞান মঞ্চে সেদিনের সন্ধে মুখরিত হবে রবি-গুলজারের গানে। পাঠ হবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সম্পর্কে গুলজারের যাবতীয় লেখা। যেখানে বিন্দুতে বিন্দুতে ঝরেছে কবির আন্তর্জাতিক কবির প্রতি আরেক কবির শ্রদ্ধা। লেখায় ফুটেছে কবিকে নিয়ে গুলজারের ক্ষোভও। এমন বিশ্বজনীন কবির কেন দেশের সব ভাষার পাঠ্যক্রমে ঠাঁই পাননি? লেখার মাধ্যমে দেশের সরকারের নজর টানতে চেয়েছিলেন সেদিকেও। সশরীরে যদিও সভাগৃহে হাজির থাকবেন না কোনও কবিই। তবু দুই কবির লেখা পাঠে থাকবেন কোরিওগ্রাফার সুদর্শন চক্রবর্তী, রূপসা দাশগুপ্ত। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নানা স্বাদের গান শোনাবেন শ্রাবণী সেন। গুলজারের লেখা হিন্দি ছবির পাঁচটি গান গাইবেন রূপঙ্কর বাগচি। ফোনে তিনি জানালেন, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের গাওয়া 'তুম পুকার লো', কিশোর কুমারের গাওয়া 'মুসাফির হুঁ ইয়ারো', 'রাহতে রহতে হ্যায়' তালিকায় থাকবে। গুলজারের বাকি কয়েকটি গান গাইবেন চন্দ্রিমা ভট্টাার্য। ১৪ তারিখ সমস্ত শিল্পী বসবেন রিহার্সালে। সলিল চৌধুরী, রাহুল দেব বর্মন, কানু রায়, ইলাই রাজা, ওস্তাদ আমজাদ আলি খানের সুরে গুলজারের লেখা গানও শোনা যাবে অনুষ্ঠানে।  অনুষ্ঠানের বিষয়কে কলমবন্দি করেছেন অংশুমান ভট্টাচার্য। সামগ্রিক পরিকল্পনায় সুদীপ্ত চন্দ।




বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement