হোম

Birthday Special: বিয়েতে অসুখী, তাই ৩বার আত্মহত্যা করতে গেছিলেন রূপা?

  | November 25, 2019 14:12 IST (কলকাতা)
Rupa Ganguly

নেত্রী যখন অভিনেত্রী

অশান্তি বাড়ছে। ঝগড়া চরমে। রোজ ডিভোর্সের পেপার আনছি। ধ্রুব ক্ষমা চাইছে। আমি ভাবছি, আরেকবার চেষ্টা করতে ক্ষতি কী? 

সাল ১৯৮৮। রবিবার সকাল ১০টা বাজলেই পথঘাট খাঁ খাঁ। কেন? ন্যাশনাল নেটওয়র্কে বি.আর চোপড়ার ‘মহাভারত' শুরু। সেখানে বাঙালিনী রূপা গাঙ্গুলি (Rupa Ganguly) দ্রৌপদীর ভূমিকায়। এর বেশি বাঙালির আর কী চাই? পঞ্চপাণ্ডবকে বিয়ের আগে দ্রৌপদী কেমন? বিয়ের পর কী হল? বস্ত্রহরণের সময় রূপার অভিব্যক্তি কেমন?---এই নিয়ে ফি-হপ্তা জল্পনা। আর এক একটা এপিসোড দেখার পরেই পরের এপিসোড নিয়ে কল্পনা। রূপার জনপ্রিয়তা দেখতে দেখতে আকাশছোঁয়া।

Birthday Special: ‘ধনঞ্জয়' থেকে ‘শেখর'....বরাবর Director's Choice রবি ঘোষ দস্তিদার

সাল ১৯৯২। রূপা গাঙ্গুলি বিয়ে করলেন ধ্রুব মুখোপাধ্যায়কে। সমস্যা শুরু এই বিয়ে নিয়েই। এক সাক্ষাৎকারে রূপা জানিয়েছেন, বিয়ে টিঁকিয়ে রাখতে, দাম্পত্য বজায় রাখতে কী না করেছেন তিনি। তাই বাকিটা জেনে নিন তাঁর জবানিতে, 'তখনও আমায় ঘিরে দ্রৌপদীর জনপ্রিয়তা। রাস্তায় বেরোলে সবাই আগ্রহী আমায় নিয়ে। ছোট-বড় পর্দা মিলিয়ে অনেক কাজ হাতে। তারপরেও 'আমি বিবাহিত', এই কথা প্রতি পদে মনে রেখে একজন বাঙালি ঘরের মেয়ে যা যা করেন আমি সবটাই করেছি। সকাল ৯টা আর রাত ১০ টার পর ফোন ধরতাম না। একা আমার নামে নিমন্ত্রণ কার্ড এলে সেখানে যেতাম না। শুট শেষ হলেই মেকআপ না তুলে প্রায় দৌড়োতে দৌড়োতে বাড়ি ফিরতাম। সেলেব হিসেবে কোনও হামবড়াই ভাব দেখাইনি ধ্রুবর কাছে। কাজের লোক না এলে ঘর ঝাঁট দিতাম। মুছতাম। বাসন মাজতাম। কাপড়ও কেচেছি। তারপরেও দেখি ধ্রুব আমায় নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগছে। দর্শক 'দ্রৌপদী' হিসেবে আমায় মেনে নিয়েছেন। ভালোবেসেছেন। তাই আমি জনপ্রিয়। এখানে আমার দোষ কী?'


ocgt7jjg


অত্যাচার শুরু এভাবেই। তারপর ধাপে ধাপে তা বাড়তে বাড়তে কী আকার ধারণ করল? বলবেন রূপা-ই, 'বিয়ে টেঁকাতে শেষমেশ মুম্বই ছেড়ে ধ্রুবর সঙ্গে কলকাতায় চলে এলাম। কাজ গেল। তাও হজম করলাম। অন্তত স্বামী থাক। এই ভেবে। কিন্তু তাতেও ওর মতি ফিরল কই! সেলেব স্ত্রীকে ধ্রুব না পারে ফেলতে না পারে গিলতে। একসময় হাতখরচের টাকাটুকুও দেওয়া বন্ধ করে দিল। আমি পড়লাম অগাধ জলে। ফের শুরু করলাম কাজের খোঁজ। মনে হল, টাকা এনে দিতে পারলে যদি স্বামীর মন পাই। প্রথমে তো কাজই পাই না। তারপর যা কাজ পেতাম করতাম। পুরো টাকা ধরে দিতাম ধ্রুবকে। তাতেও মন গলল না স্বামীর।

Birthday Special: বিয়েতে অসুখী, তাই ৩বার আত্মহত্যা করতে গেছিলেন রূপা?

অশান্তি বাড়ছে। ঝগড়া চরমে। রোজ ডিভোর্সের পেপার আনছি। ধ্রুব ক্ষমা চাইছে। আমি ভাবছি, আরেকবার চেষ্টা করতে ক্ষতি কী? এভাবে যখন নিজের কাছে নিজেই অসহ্য তখন ঠিক করলাম, নিজেকে শেষ করে দেব। একবার নয়, তিনবার। প্রথমবার, ছেলে তখনও জন্মায়নি। প্রচুর ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলাম। ১৯৯৭-এ ছেলে জন্মানোর পর আরও দু-বার। প্রতিবার ঈশ্বর আমায় ফিরিয়ে দিয়েছেন। মনে হয়, আমার যাওয়ার সময় হয়নি বলে।'


1rckft5g


একটা সময় সংসার-মানুষের ওপর বীতশ্রদ্ধ হয়ে কলকাতা ছেড়ে মুম্বইবাসী হন রূপা। ধ্রুব কিন্তু আকাশকে ছাড়েনি তার মায়ের কাছে। রূপাও টানা-হ্যাঁচড়া করেননি ছেলেকে নিয়ে। যাতে কচি মনে কোনও আঁচড় না লাগে। মায়ের কর্তব্যেও অবহেলা করেননি। ছেলের সব কাজে, সব ব্যাপারে মুম্বই থেকে ছুটে এসেছেন কলকাতায়। প্রেম এসেছে এত যন্ত্রণার পরেও। রূপা তাকে সাদরে গ্রহণ করেছেন। কিন্তু আর তিনি প্রেমিক বা স্বামী কারোর কাছে ফিরে আসেননি। দিন কাটছে নিজের মতো করে।


kjguv1qo


অভিনয় করতে করতেই অভিনেত্রী ২০১৫-য় নিজেকে রূপান্তরিত করেন নেত্রীতে। যোগ দেন ভারতীয় জনতা পার্টি বা বিজেপিতে। ২০১৬-য় বিধানসভা নির্বাচনে যদিও তিনি হেরে যান তৃণমূলপ্রার্থী লক্ষ্মীরতন শুক্লার কাছে। ওই বছরেই তিনি রাজ্যসভায় নভজ্যোত সিং সিধুর জায়গায় আসেন। আজ, ২৫ নভেম্বর লড়াকু নেত্রী-অভিনেত্রীর জন্মদিন। জন্মসাল, তারিখ বলছে, আজ তিনি ৫২। ঈশ্বর তাঁকে তিনবার ফেরত পাঠিয়েছেন নিজের দুনিয়ায় গ্রহণ না করে। মানুষের মাঝে, মানুষের সঙ্গে, মানুষের কাজ করে বাঁচার জন্য। তাঁর জন্মদিনে তাই অগণিত অনুরাগীর একটাই কথা, 'হারকে জিতনেওয়ালে কো বাজিগর কহতে হ্যায়।' রূপা আপনি তাই-ই...।

দেখুন ভিডিও




বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement