হোমমিউজিক

Durga Puja 2019: ‘জনপ্রিয়তা যেন উন্নতির বাধা না হয় রাণুর’: কুমার শানু

  | September 23, 2019 14:45 IST (কলকাতা)

Click to Play

Durga Puja 2019: 'খেয়ালি মন' নিয়ে পুজোয় আসছেন কুমার শানু

২০১৯-এ আশা অডিও-র উদ্যোগে, কর্ণধার মহুয়া লাহিড়ির সৌজন্যে ফের ছ-টি বাংলা গানের অ্যালবাম ‘খেয়ালি দিন’ নিয়ে ফিরলেন নয়ের দশকের নকআউট কুমার শানু। তিন সুরকার অঙ্কন, কিঞ্জল আর শোভনের সুরে।

২০১৭-তে শেষ পুজোর গান গেয়েছিলেন কুমার শানু। ২০১৯-এ (Durga Puja 2019) আশা অডিও-র (Asha Audio) উদ্যোগে, কর্ণধার মহুয়া লাহিড়ির সৌজন্যে ফের ছ-টি বাংলা গানের অ্যালবাম ‘খেয়ালি দিন' (Kheyali Mon) নিয়ে ফিরলেন নয়ের দশকের নকআউট মেলডি কিং। এই প্রজন্মের তিন সুরকার অঙ্কন, কিঞ্জল আর শোভনের সুরে। জন্ম দিলেন নতুন শিল্পী মৌসুমীর। সোমবার কলকাতার একটি নামি হোটেলে ফেলে আসা দিনের মতোই মিউজিক লঞ্চ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন শাস্ত্রীয় সঙ্গীত দুনিয়ার আর এক দিকপাল রশিদ খানকে সঙ্গে নিয়ে। কথায় কথায় জানালেন নতুন-পুরনো পুজোর বাংলা গানের কথা। নিজের খেয়ালেই ফিরে গেলেন ফেলে আসা দিনের কথায়। NDTV-র পক্ষ থেকে কুমার শানুর (Kumar Sanu) স্মৃতিচারণের সঙ্গী উপালি মুখোপাধ্যায়

প্রশ্ন: বাঙালির কাছে পুজো মানেই কুমার শানুর বাংলা গান। কুমার শানুর কাছে পুজো মানে কী?

উত্তর: পুজোরজামাকাপড় তো ছিলই। আর বরাবরই গানের প্রতি আলাদা আকর্ষণ ছিল। তাই বাবা এইচএমভি-র শারদ অর্ঘ্য বুকলেট নিয়ে যেইমাত্র বাড়িতে পা রাখতেন হামলে পড়তাম তার ওপর। পুজোয় কোন কোন শিল্পী এই সংস্থা থেকে পুজোর গান রেকর্ড করালেন, তাঁদের ছবি-নাম থাকত। সেই দেখে জানতাম, কোন শিল্পী, পুজোর কটা গান গাইছেন। এই নেশা বলুন বা পুজোর বাংলা গানের প্রতি টান--- বরাবরই ছিল।

সম্পর্কের ‘ঘুণ' ঝরাতে ‘হারিয়ে যেতে হয়'?

প্রশ্ন: কোন, কোন শিল্পী প্রিয় ছিলেন?


উত্তর: হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, মান্না দে তো ছিলেনই। আর ছিলেন মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায়, বনশ্রী সেনগুপ্ত, প্রতিমা বন্দ্যোপাধ্যায়, সতীনাথ মুখোপাধ্যায়। এঁদের গান শুনতে শুনতেই বেড়ে উঠেছি।

sc6m4co


প্রশ্ন: ২০১৭-র পর ২০১৯-এর ফের পুজোর বাংলা গানে প্রত্যাবর্তন কুমার শানুর। কিসের তাগিদে?

উত্তর: পুরো কৃতিত্ব আশা অডিও আর মহুয়া লাহিড়ির। আশা অডিও-র সঙ্গে আমার সম্পর্ক নয় নয় করে ২৫ বছর। মহুয়ার অনুরোধ ছিল, দাদা অনেকদিন পুজোর বাংলা গান নিয়ে কাজ হচ্ছে না। চলুন কিছু করি। এবং পুরোটাই হবে পুরনো স্টাইলে। অর্থাৎ,সিঙ্গল নয়, ইউ টিউবে নয়, অ্যামবামে ছ-টি গান থাকবে। এবং সেই অ্যালবাম লঞ্চ হবে আগের মতো অনুষ্ঠান করে। মহুয়ার এই উদ্যোগ ভালো লাগতেই রাজি হয়ে যাই। তারই ফসল 'খেয়ালি দিন'। যেখানে সব স্বাদের গান শুনতে পাবেন শ্রোতা।

প্রশ্ন: কিঞ্জল, শোভন, অঙ্কিতের মতো তরুণ প্রজন্মের ওপর ভরসা রাখলেন কিসের জোরে?

উত্তর: আমি রিয়েলিটি শো-এ ওদের কথা দিয়েছিলাম, এই তিনজনকে নিয়ে কাজ করব। পরে যখন এদের ডাকি, ওরা বিশ্বাস করে উঠতে পারেনি। আমার কিন্তু বিশ্বাস ছিল ওরা পারবে। সেই বিশ্বাস ওদের মনে ছড়িয়ে দিতেই আস্তে আস্তে মোটিভেট হল তিন সুরকার। প্রথমে খুব ভয়ে ভয়ে থাকত। সেই ভয়টাকে কাজে লাগিয়ে ওদের প্রতিভাকে সামনে আনলাম কিছুটা দাদাগিরি করে। পরে অবশ্য বন্ধুত্ব হয়ে যায়। তবে খুব সিরিয়াস হয়ে কাজ করেছে এরা। অনেক নামি সুরকারের থেকে অনেক ভালো এদের কাজ। পুরোটাই তাই ফাটাফাটি (হেসে ফেলে)।

Durga Puja 2019: ‘‘হেই মা দু্গ্গা'র অস্ত্র আজও ভোঁতা! অ-সুর বধ হল কই?'': লোপামুদ্রা মিত্র

প্রশ্ন: কুমার শানু মানেই নতুন প্রতিভার জন্ম তাঁর সৌজন্যে। এবারের নতুন শিল্পী মৌসুমী সম্বন্ধে কিছু বলবেন?

উত্তর: আমার ফ্যান ক্লাবের ছেলেরাই মৌসুমীর কথা জানিয়েছিল। কথা পবলে দেখলাম, ওঁর মধ্যে প্রতিভা আছে। ফলে, ওঁর সঙ্গে ডুয়েট গাইলাম। রেকর্ডিং-এর আগে ওঁর যদিও গলায় সমস্যা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু মৌসুমী তাঁর তোয়াক্কা না করেই গান গেয়েছেন। এবং বেশ ভালোই শুনতে লেগেছে ওঁর গলা। এবার শ্রোতারা ভালোবেসে ওঁকে গ্রহণ করলে বাংলা আরও এক নতুন প্রতিভা পাবে। এবং বাংলা গান শোনা যাঁরা ছেড়ে দিয়েছেন, আশা করি এই অ্যালবাম তাঁদের ফেরাবে।

jlu7770o


প্রশ্ন: এই মুহূর্তে বলিউডে প্রচণ্ড জনপ্রিয় রাণু মণ্ডল। তাঁকে নিয়ে আপনার মত?

উত্তর: আমি রাণুকে চিনি না। তবে ওঁর গান শুনেছি। গলা ভালো। ভালো গাইছেন। হিমেশ রেশমিয়া ওঁর সঙ্গে ডুয়েট গেয়েছেন শুনেছি। তবে মিডিয়া হাইপ দেখে বুঝতে পারছি না হিমেশ রাণুকে স্পনসর করছেন না রাণু হিমেশকে! যাই হোক, রাণুর জন্য অনেক শুভেচ্ছা রইল। সঙ্গে এটাও বলব, অতি জনপ্রিয়তা যেন ওঁর চলার পথের বাধা হয়ে না দাঁড়ায়।

EXCLUSIVE: ‘জীবন একটাই, তাই সব শখ মিটিয়ে নিচ্ছি': বাবুল সুপ্রিয়

প্রশ্ন: হাতেগোণা কয়েকদিন পরেই পুজো। কুমার শানু পুজো কীভাবে কাটাবেন? শপিং শেষ?

উত্তর: পুজোতে বিদেশে থাকব। আমেরিকায় শো করতে যাচ্ছি। ওখানেই ঠাকুর দেখে নেব। ভোগ খাব। যদিও কলকাতার পুজো অনেক বছর হয়ে গেল খুব মিস করি। তবে প্রবাসী বাঙালিদের পুজোও খুব খারাপ হয় না। আর আমি কোনোকালেই শপিং করি না। টাকা ধরে দিয়ে দিই সবাইকে। কেউ কিছু দিলে ভীষণ ভলো লাগে।


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com