হোমবলিউড

স্বরা ভাস্করের বিতর্কিত দৃশ্য প্রসঙ্গে করণ জোহার বললেন, "আমরা এবিষয়ে এতো কথা বলছি, দারুন"

যে মেয়েরা এমন চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি হয়েছেন এবং যে পরিচালক এমন বিষয়কে নিয়ে সিনেমা করার সাহস দেখিয়েছেন- তাঁদের আরও ভাল হোকঃ বললেন করণ জোহার

  | June 13, 2018 14:38 IST (মুম্বাই)
Karan Johar

মুম্বাইতে আলাদা দুটো ইভেন্টে স্বরা ভাস্কর এবং করণ জোহার

Highlights

  • আমরা হঠাৎ করেই খোলামেলাভাবে এটা নিয়ে আলোচন করছিঃ করণ জোহার
  • ভিরে দি ওয়েডিং-এর এই সিন নিয়ে সকলে সরাসরি আলোচনা করছেঃ করণ জোহার
  • এই সপ্তাহ থেকে করণ জোহারের লাস্ট স্টোরিজ নেটফ্লিক্সে সম্প্রচারিত হবে
ভিরে দি ওয়েডিং-এ স্বরা ভাস্করের হস্তমৈথুনের দৃশ্য নিয়ে বহু মানুষ অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। করণ জোহারের শর্ট ফিল্ম নেটফ্লিক্স অরিজিনালস লাস্ট স্টোরিজেও একই ধরণের দৃশ্য আছে।  NDTV.com এর সঙ্গে একটা ইন্টারভিউতে এই ধরণের ঝুঁকিবহুল দৃশ্য তৈরি বা সিনেমার গতানুগতিকতা থেকে বেরিয়ে আসার প্রসঙ্গে বর্তমান সমাজ হস্তমৈথুনকে কী নজরে দেখে- এমন কিছু প্রসঙ্গে নিজের মতামত জানালেন করণ জোহার।
প্রশ্ন: বোম্বে টকিজের পর (2013), লাস্ট স্টরিজের কনসেপ্ট কীভাবে এলো এবং এই ধরণের একটা প্রোজেক্টের অবস্থান ঠিক কী?  
করণ জোহারঃ “বোম্বে টকিজের মতোই হঠাৎ করে এটার চিন্তাভাবনাও শুরু হল। এটা  আশি দুয়ের কনসেপ্ট। সে আমাদের কাছে আসার পর আমরা কাজ শুরু করি। আমাদের নির্দিষ্ট বাজেট ছিল। আমরা সেই বাজেটের বাইরে বেরোতে পারবো না এটা অলিখিত নিয়ম ছিল- যা আমরা মেনে চলতাম। আমরা ভিন্ন থিমের চারটে আলাদা গল্প নিয়ে একই থিমে সাজিয়েছি। আমরা প্রথমে ঠিক করেছিলাম লাভ অ্যান্ড লাস্ট, সেটা পরবর্তীকালে লাস্ট স্টোরি-তে এসে দাঁড়ায়। প্রতিটা গল্পেই লাস্টের ভূমিকা আছে। আমরা ভেবেছিলাম চারটে আলাদা গল্প একই একই কথা বলবে।“
প্রশ্ন: স্বরা ভাস্করের ভিরে দি ওয়েডিং-এর হস্তমৈথুন দৃশ্য নিয়ে জল্পনা এখনও শেষ হয়নি, আপনার লাস্ট স্টোরিতেও একই ধরণের দৃশ্য আছে বলে জানা গেছে। আপনি কী ধরণের রিঅ্যাকশন আশা করছেন?  
করণ জোহারঃ “আমার মতে বিতর্ক থাকা সব সময়ই ভালো। দোস্তানার পরেও কিছু কিছু জিনিসের স্টেরিওটাইপ মনভাবের জন্য আমরা প্রচুর সমালোচনা হতে দেখেছিলাম এবং আমার মতে সমালোচনা হওয়া প্রয়োজন ছিল। সেক্ষেত্রে সমকামিতার মতো একটা বিষয় যা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা খুবই সীমিত ছিল কিম্বা একেবারেই ছিল না, দোস্তানার পর তা নিয়ে মানুষের ঘরে ঘরে আলোচনা শুরু হয়েছিল। তেমনই ভিরে দি ওয়েডিং- হস্তমৈথুনের দৃশ্য নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পর আলোচনার পথ প্রশস্ত হয়েছে। ট্রোল, খারাপ মন্তব্য সমস্ত কিছুর ফলেই এই বিষয়টা আজ সকলের সামনে উঠে এসেছে। কিন্তু আমরা একবারও বলছি না হস্তমৈথুন এটা ভাল জিনিস। তো যে সকল মানুষ সিনেমায় এই দৃশ্য দেখে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন তাঁরা কিন্তু একটা মেইনস্ট্রিম সিনেমা নিয়ে আজ আলোচনা করছেন। যে মেয়েরা এমন চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি হয়েছেন এবং যে পরিচালক এমন বিষয়কে নিয়ে সিনেমা করার সাহস দেখিয়েছেন- তাঁদের আরও ভাল হোক। আমরা এই সিনেমা নিয়ে আরও খোলামেলা আলোচনা করতে শুরু করেছি।“


প্রশ্ন: লাস্ট স্টোরিসে আপনার কনসেপ্ট কী?
করণ জোহার: “ সেলসেশানের জন্য আমরা ওই দৃশ্যটা তৈরি করিনি, আমাদের তা উদ্দ্যেশ্য নয়। আরও অনেক উপায় আছে সেনসেশন বাড়ানোর, আমরা  সেগুলির জন্যই  সেলসেশান বাড়ানোর চেষ্টা করছি। সেখানে কোনও ন্যুডিটি নেই, প্রোফ্যানি নেই। ওখানে যা কিছু আছে তা সমস্তটাই একটা নির্দিষ্ট কারণ ও উদ্দেশ্য নিয়ে আছে, আর দর্শকদের কাছ থেকে আমরা শুধুমাত্র চাই তারা দেখুক এবং আমাদের লাস্টে তাদের অনেক ভালবাসা ঝরে পড়ুক।“    
প্রশ্ন: এই সম্পর্কে ইন্টারনেটে সমস্ত ব্লগ এবং টুইটে নিয়মিত নজর রাখেন?
করণ জোহার: "আমি সব কিছু পড়ি। আমি আবারও একই কথা বলি, অন্তত মানুষ এই আলোচনা তো করছে।”  
প্রশ্ন: আপনার কাছে ওয়েব সিরিজ এবং সিনেমায় কাজ করার মধ্যে কী পার্থক্য আছে বলে মনে হয়?
করণ জোহার: "আমরা সকলেই ওয়েব সিরিজ দেখি এবং সারা বিশ্বে কী কী ওয়েব সিরিজ তৈরি ও সম্প্রচারিত হচ্ছে তা আমরা সকলেই খেয়াল রাখি। কিন্তু এটা যেহেতু একটা শর্ট ফিল্ম তাই কিছু পার্থক্য আছে। শর্ট ফিল্ম লেখায় অনেক ভাল দিক আছে। আমি পুরোটা বলেও দিচ্ছি না; শর্ট ফিল্মকে একটা ফিচারের আকারে দেখা হয়। আমার কাছে একটা ফিচার ফিল্ম লেখার সিনট্যাক্স আছে, যার শুরু, ইন্টারভ্যাল এবং শেষ আছে। একজন শর্ট ফিল্ম লেখক হিসাবে আমি কখনওই তা আগে থেকে জানাতে পারবো না।“
  
প্রশ্ন: ওয়েব সিরিজ হওয়ায় কী চাপ কম থাকে?
করণ জোহার: "আমাদের সব সময় চাপ থাকে। তবে হ্যায়, সিনেমার থেকে এটা আলাদা। এখানে স্ট্রেস কম। এখানে বাজারের টাকা থাকে, যা মার্কেটিং এবং পাবলিসিটির কাজে ব্যবহার হয়। আপনার সব সময় মনে হবে মানুষের টাকা অপচয় যেন না হয়। তাই কতজন মানুষ আসবে সেই চিন্তা সব সময় মাথায় থাকে। উইকএন্ডে কত সংখ্যক মানুষ আসবে সেই চিন্তা মাথায় ঘুরতে থাকে। তাঁরা কী শনিবারের পর আবার সোমবার সিনেমাটা দেখবে? এই সব ট্রমার মধ্যে আমাদের দিন কাটে। আমাদের মধ্যে যারা বক্স-অফিস ডিএনএ-এর সঙ্গে যুক্ত তাঁদের চিন্তা বেশি। আমি অত্যন্ত সতর্ক থাকি। ভাগ্যিস আমাদের খুব লিমিটেড বাজেট ছিল। এটা ভাবতে খারাপ লাগে না, আমি লাভের জন্য কত টাকা খরচ করলাম আর লাস্টের জন্য এতো কম?”
প্রশ্ন: লাস্ট স্টোরির চারটে গল্পের প্রতি ক্ষেত্রেই একজন মহিলা কেন্দ্রীয় চরিত্র দেখা গেছে। সেটাও কী ছোট গল্পের একটা অংশ হিসাবেই?  
করণ জোহার: "না! একেবারেই তা নয়। এটা সাধারণভাবেই হয়েছে। এমনকী আমরা প্রত্যেকে নিজেদের সিনেমা শেষ হওয়ার পর সেটা আবিষ্কার করেছি।“  
প্রশ্ন: এক সময়ে এসে কী চার জন পরিচালক পরস্পরের সিনেমা দেখেছেন?
করণ জোহার: "এটাই মজার অংশ। আমরা নিজেদের সিনেমা তৈরির পর জোয়ার বাড়িতে গিয়ে বসে পরপর চারটে সিনেমাই চালিয়ে দেখেছি। সে আমাদের কাবাব খাইয়েছিল আর আমরা প্রত্যেকটা সিনেমা নিয়ে আলোচনা করছিলাম। আমি যা মনে করি সেটাই বলি কারণ আমার প্রিয়জনদের থেকে আমি ভালবাসা এবং শ্রদ্ধা এক্সপেক্ট করি। আর আপনি যখন সেখানে উপস্থিত থাকবেন আপনি চাইবেন আপনিও সেই গল্পের একটা নির্ভুল অংশ হয়ে থাকুন।“
আগামী 15ই জুন থেকে নেটফ্লিক্সে লাস্ট স্টোরিজ সম্প্রচারিত হবে।  
 

বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
 
Advertisement
Advertisement
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com