হোম

Exclusive: ‘একসপ্তাহ আগেই চোখ এঁকেছি বাবার, তারপরেই ডাক লোকনাথ চরিত্রে’: ভাস্বর

  | November 11, 2019 20:18 IST (কলকাতা)
Bhaswar Chatterjee

জয় বাবা লোকনাথে ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়

আজ অর্থাৎ, ১১ নভেম্বর সন্ধে সাড়ে সাতটায় পুরনো লোকনাথ সৌপ্তিক চক্রবর্তীর জায়গায় দেখা যাবে নতুন লোকনাথ ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়কে।

আপাতত তিনি মনেপ্রাণে বাবা লোকনাথ। ফেসবুকেও তিনি এই ‘অবতার-এই'। কারণ, আজ অর্থাৎ, ১১ নভেম্বর সন্ধে সাড়ে সাতটা থেকে জি বাংলায় পুরনো লোকনাথ সৌপ্তিক চক্রবর্তীর জায়গায় তিনি, ভাস্বর চট্টোপাধ্যায় (Bhaswar Chatterjee) আসছেন বাবা লোকনাথ রূপে। জনপ্রিয় মেগা জয় বাবা লোকনাথ-এ (Joy Baba Loknath)। গত বুধবার লুক টেস্টের পর দিন তিনেকের শুটও করে ফেলেছেন ভাস্বর। এসব খবর হয়তো সংবাদপত্রের দৌলতে আপনাদের জানা। জানেন কি, একসপ্তাহ আগে একটি ছবিতে বাবা লোকনাথের চোখ এঁকেছিলেন তিনি। ভাস্বরের দাবি, তারপরেই এই চরিত্রে অভিনয়ের ডাক পান। পুরোটা জানতে বরং বাকিটা জেনে নিন ভাস্বরের জবানিতে----

‘একচক্র' গ্রামের পুরোহিত নারীপাচারের সঙ্গে যুক্ত?

'মাস দেড়েক আগে প্রযোজকের পক্ষ থেকে সাহানাদি ফোনে বলেন, একটা চরিত্র আছে অভিনয় করবি? আমি বললাম কী চরিত্র? বললেন, সে আছে। তুই না বলিস না। আমি রাজি। কয়েকদিন বাদে আবার ফোন, লুক টেস্ট করবি না? এবার বললাম, করব কিন্তু চরিত্রের নাম বলবে না! তখন সাহানি জানালেন, বাবা লোকনাথের বৃদ্ধাবস্থা। সঙ্গে সঙ্গে বললাম, এতে আপত্তির কী আছে! লোকে ভাগ্য করে এসব চরিত্রে সুযোগ পায়। লুক টেস্ট করার আগে যদিও ভয় ছিল, বাবার সঙ্গে আমার মিলের থেকে অমিলই বেশি। উনি রোগা-পাতলা। লম্বাটে মুখ। আমি অনেকটাই ভারী। গোলগাল। সারাক্ষণ টেনশন হচ্ছিল, উতরোব তো! শেষে বাবার নাম নিয়ে দেখলাম লুক টেস্টে আমি পাশ। দাড়ি-গোঁফ, বিশেষ পোশাকে সাজানোর পর সবাই বললেন, বেশ লাগছে। আমিও ভরসা পেলাম। বাকিটা অভিনয় দিয়ে বাস্তব করে তুলতে হবে। 

d3a11mdo


এবার প্রশ্ন উঠতেই পারে লোকনাথ বাবা সম্পর্কে আমি কতটা জানি? কীভাবে নিজেকে তৈরি করছি? এক্ষেত্রে বলব, আপনারা যেমন জানেন আমিও তেমনটাই জানি। খুব গভীরে গিয়ে তাঁকে নিয়ে পড়াশোনা করার সুযোগ হয়নি। তবে চরিত্রে মনোনীত হওয়ার পর থেকেই পড়াশোনা শুরু করেছি। জানি, আরও অনেক পড়তে হবে।

তবে, এই চরিত্র পাওয়া নিয়ে একটা অলৌকিক ঘটনা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। এর আগে আকাশ আট চ্যানেলের 'সেকশন ৩০২' করছিলাম। সেটে লোকনাথ বাবার খুব সুন্দর একটা পেইন্টিং ছিল। কিন্তু তাতে বাবার চোখ আঁকা ছিল না। দেখে ভীষণ খারাপ লেগেছিল। সেটের মধ্যেই একটি তুলি আর সাদা রং দেখতে পেয়ে তাই দিয়ে চোখ আঁকতে শুরু করি। সবাই দেখে প্রশংসা করেছিলেন। আর আমি বলেছিলাম এত সুন্দর একজন মানুষের চোখ নেই! হয় নাকি? তার এক সপ্তাহের মাথায় ডাক পাই!'

‘বিশাল ঐ পাহাড়ের ঢালে একটা ঘর বাঁধার খুব ইচ্ছে' মনামীর! কার সঙ্গে?

অনেকবারই ভাস্বরকে পৌরাণিক চরিত্রে দেখা গেছে। টাইপড হয়ে যাওয়ার ভয় পান না ভাস্বর? উত্তরে সদাহাস্য উক্তি, 'নানা শেডের চরিত্র করেছি। কখনও নায়ক, খলনায়ক, বিকলাঙ্গ আবার মহাপুরুষের চরিত্রেও। তাতে যখন টাইপড হয়নি এতেও হবে না। বরং, ঈশ্বরকে ধন্যবাদ আমার ২১ বছরের অভিনয় জীবনে তিন মহাপুরুষের চরিত্রে অভিনয় সুযোগ দেওয়ার জন্য--- সাঁইবাবা, স্বামী বিবেকানন্দ, লোকনাথ বাবা। এই সুযোগ কি সবাই পান?'





বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement