হোমবলিউড

কীভাবে সঞ্জয় দত্তে রূপান্তরিত হলেন রণবীর কাপুর? জেনে নিন

ভিডিওতে পরিচালক হিরানিকে বলতে শোনা যাচ্ছে, “সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল, সঞ্জয় দত্তের ভূমিকায় কে অভিনয় করবে?"

  | July 07, 2018 16:03 IST (নিউ দিল্লী)
Sanju Rejected Looks

সঞ্জুর নির্মাতাদের শেয়ার করা ভিডিওর কিছু স্থির চিত্র (সৌজন্যে: ইউটিউব)

Highlights

  • প্রোটিন শেক খেতে ভোর তিনটেয় ঘুম থেকে উথতেন রণবীর কাপুর
  • প্রতিদিন ছয় ঘণ্টা বসে প্রস্থেটিক মেকআপ নিতেন রণবীর কাপুর
  • "আমি জিম ঘৃণা করি", জানান রণবীর কাপুর

জিমে যাওয়া একেবারেই অপছন্দ রণবীর কাপুরের। কিন্তু সঞ্জুতে তাঁর অপূর্ব ট্রান্সফর্মেশনে জিমের ভূমিকা অপরিসীম- একথা সকলেই একবাক্যে মেনে নেবে। ভোর তিনটেয় ঘুম থেকে উঠে শুটিংয়ে যাওয়া, দিনে আটবার খাবার খাওয়া এবং প্রস্থেটিক দলের সঙ্গে ছয় ঘণ্টা সময় কাটানোর পর যথাযথ লুক ফুটে উঠেছে। সঞ্জু নির্মাতারা একটা ভিডিও শেয়ার করেছেন যেখানে সঞ্জয় দত্ত হিসাবে রণবীর কাপুরকে গড়ে তুলতে কত রকম লুক পরীক্ষা করা হয়েছিল দেখা যাচ্ছে। ভিডিওতে পরিচালক হিরানিকে বলতে শোনা যাচ্ছে, “সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল, সঞ্জয় দত্তের ভূমিকায় কে অভিনয় করবে? কারণ এমন একজনকে প্রয়োজন ছিল যে তাঁর মতো আচরণ করবে, তাঁর মতো দেখতে হবে এবং তাঁর মতোই অনুভব করবে।“ 2016 সালের জানুয়ারি মাসে রণবীরের কাছে পরিচালকের একটা ম্যাসেজ যায় যার প্রত্তুত্যরে রণবীর লেখেন, “আশা করি এটা সঞ্জয় দত্তের বায়োপিক নয়!“
 
কিন্তু রণবীর জানান, একটা বিষয়ে তাঁর ধারণা অত্যন্ত স্পষ্ট ছিল, “এই লুকটা অর্জন না করতে পারলে সিনেমাটা হবে না”। প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল শারীরিকভাবে রণবীরকে সঞ্জয় দত্তে রূপান্তর করা, জানান পরিচালক, যিনি যথার্থ লুকের আগে বহু লুক বাতিল করেন বলে জানা গেছে। প্রস্থেটিক বিশেষজ্ঞরা রণবীরের লুকের জন্য প্রচুর পরিশ্রম করেন। “পরপর বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আমরা ব্যর্থ হয়েছিলাম। ছয় ঘন্টা চেয়ারে বসে আমরা ভাবতাম এবার হয়তো কাঙ্খিত লুক পাওয়া যাবে কিন্তু মাত্র তিরিশ সেকেন্ড সময়েই এক একটা লুক বাতিল হয়ে যেত। ছয় ঘণ্টার পরিশ্রম মুহূর্তে জলে যেত”, জানান রণবীর। “কিন্তু তারপর যখন এই লুকটা পাওয়া গেল রাজু স্যার দেখে বললেন তিনি যা চাইছিলেন পেয়ে গেছেন”, জানান রণবীর। রণবীরের বাতিল হওয়া ছয়টা লুক দেখা গেছে ভিডিওতে।
পর্দায় শারীরিকভাবে সঞ্জয় দত্ত হয়ে ওঠার সময় রণবীর জানান, “আমি জিম ঘৃণা করি। কিন্তু যেহেতু আমার কাজের জন্য এটা প্রয়োজন ছিল তাই আমাকে যেতে হয়েছিল। আমি 13-14 টা সিনেমায় অভিনয় করেছি। এটাই প্রথম সিনেমা যেখানে আমি নিজের চেহারার সঙ্গে কিছু করার সুযোগ পেয়েছি। তাই আমি এটাকে একটা চ্যালেঞ্জ হিসাবে গ্রহণ করেছিলাম।“
“দিনে আটবার খাচ্ছিলাম। ভোর তিনটেয় উঠে প্রোটিন শেক খাচ্ছিলাম। আমি কোনদিন এসব করবো কল্পনাও করিনি”, ভিডিওতে বলেন রণবীর। “সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে বডি বিল্ডিং ওতপ্রোতভাবে জড়িত এটা আমি নষ্ট করতে পারতাম না। সঞ্জয় দত্তের চরিত্রে অভিনয় করলে শরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়”, আরও জানা রণবীর।   
তিন মাস শরীরচর্চার পর রণবীর আমাদের সকলকে চমকে দেন। ভিডিওতে রণবীর আরও জানান, “আমার শারীরিক গঠন বদলে গিয়েছিল। আমি তেমন কোনওদিনই ছিলাম না। সেটে আমার দিকে সকলে এমনভাবে তাকাত যেন মনে হত তারা ভাবছে হ্যাঁ আমরা কিছু একটা পেয়ে গেছি।“


দেখে নিন সেই ভিডিওঃ


বক্সঅফিসে অত্যন্ত সাফল্য পেয়েছে সঞ্জু। প্রথম সপ্তাহ শেষেই এই ছবি 200 কোটি টাকার বেশি আয় করেছে। সঞ্জয় দত্তের বায়োপিকে কেন্দ্রীয় চরিত্রে রণবীরের পাশাপাশি দিয়া মির্জা, অনুষ্কা শর্মা, সোনম কাপুর, ভিকি কৌশল, পরেশ রাওয়াল এবং মনীষা কৈরালাকে বিভিন্ন প্রধান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে।



বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
 
Advertisement
Advertisement