হোম

অর্জুন-এর ‘গুলদস্তা’য় ফুল হয়ে ফুটবেন অর্পিতা-দেবযানী-স্বস্তিকা?

  | August 13, 2019 22:46 IST (কলকাতা)
Director Arjunn Dutta

তিন নারীর কাহিনি 'গুলদস্তা'

তিন নারী-ই বড় এবং ছোট পর্দা মিলিয়ে ক্ষুরধার তরবারি। এঁরা অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়, দেবযানী চট্টোপাধ্যায় এবং স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। ‘অব্যক্ত’ অর্জুন দত্তের পরের ছবির তিন ফুল। ফুল-ই বলা ভালো এঁদের। কারণ, ছবির নাম যেহেতু ‘গুলদস্তা’।

মহাভারতের অর্জুন লক্ষ্যভেদ করে দ্রৌপদীকে জিতেছিলেন। একুশের অর্জুন দত্ত (Director Arjunn Dutta) এক ফ্রেমে বন্দি করে নিলেন এমন তিন নারীকে যাঁরা ‘এ বলেন আমায় দেখ তো ও বলেন আমায়'! তিন নারী-ই বড় এবং ছোট পর্দা মিলিয়ে ক্ষুরধার তরবারি। এঁরা অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় (Arpita Chatterjee), দেবযানী চট্টোপাধ্যায় (Debjani Chatterjee) এবং স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (Swastika Mukherjee)। ‘অব্যক্ত' অর্জুন দত্তের পরের ছবির তিন ফুল। ফুল-ই বলা ভালো এঁদের। কারণ, ছবির নাম যেহেতু ‘গুলদস্তা' (Guldasta)।

h0j10os


গত সপ্তাহতেই সংবাদমাধ্যম তোলপাড় এই তিন নারীর এক ফ্রেম শেয়ার করার খবরে। মঙ্গলবার ছিল দ্বিতীয় চমক। ছবির নাম প্রকাশ করলেন অর্জুন। একই সঙ্গে সামনে এল অর্পিতা-দেবযানী-স্বস্তিকা অভিনীত চরিত্রের কথা। গল্প অনুযায়ী ছবিতে অর্পিতা 'শ্রীরূপা'। ঘরে-বরে যিনি ঘোরতর সংসারী। এবং আপাতদৃষ্টিতে সম্পূর্ণা। আপাত দৃষ্টিতে কথাটা এই জন্যেই, সব  থেকেও কী যেন নেই-এর তাড়নায় সারাক্ষণ ভোগেন শ্রীরূপা। কী সেই অভাব? ক্রমশ প্রকাশ্য। তবে ছবি নিয়ে ভীষণ উত্তেজিত টলিউডের ফার্স্ট লেডি। নিজের চরিত্র নিয়ে বলতে গিয়ে বলেন, 'অর্জুনের সঙ্গে এটা আমার দ্বিতীয় কাজ। আগের ছবি 'অব্যক্ত'-র থেকে এই চরিত্র একেবারেই আলাদা। ইন্দো-জার্মান ফিল্মউইক সম্মান ২০১৯ পাওয়ার পর থেকেই পরিচালকের প্রতি বিশ্বাস এবং প্রত্যাশা আগের থেকে আরও বাড়ল আমার। দর্শকেরও। আর স্বস্তিকার সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করতে পেরে ভীষণ ভালো লাগছে। ওঁর অভিনয়, ব্যক্তি স্বস্তিকা---দুজনকেই ভীষণ শ্রদ্ধা করি।' 

rrobfep


ছবির দ্বিতীয় ফুল রেণু। সংসারে সমর্পিত প্রাণ। ভীষণই সাদামাঠা। যিনি চট করে রা কাড়েন না। সংসার রয়েছে তাঁরও। রয়েছে ছেলেকে নিয়ে সমস্যাও। কিন্তু সেই সমস্যা এখনই খোলসা করতে চাইলেন না দেবযানী ওরফে রেণু। তবে চরিত্র নিয়ে বলতে গিয়ে দেবযনী জানালেন, 'ছোটপর্দায় সবাই আমাকে খল হিসেবে চেনেন। নয়তো ভীষণ আউট স্পোকেন, স্মার্ট, মর্ড মহিলা। রেণু একেবারেই তার বিপরীত। বলতে পারেন ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে পর্দায় প্রতিফলিত হব আমি। নিজেকে নতুন ভাবে চেনাতে তাই ঠিক করেছি, মেকআপ করব না একেবারেই। আর ভালো লাগছে এই নিয়ে তৃতীয়বার অর্জুনের ছবিতে থাকতে পেরে। এতদিন বড়পর্দা ডাকেনি আমায়। অর্জুন লেডি লাক বলে সম্বোধন করে ওঁর ছবিতে অর্পিতা, স্বস্তিকার পাশে আমায় জায়গা দিয়ে সেই সম্মান দিলেন।'

প্রথম ছবিতেই বাজিমাত, ইন্দো-জার্মান ফিল্মউইক ২০১৯ সম্মান পেল অর্জুনের ‘অব্যক্ত'

ছবির তৃতীয় ফুল ডলি। যিনি মাড়ওয়াড়ি সেলস উওম্যান। ভিন্নভাষী এই মহিলা ভীষণ পরিশ্রমী। কাজ ছাড়া যিনি দুনিয়া চেনেন না। এই চরিত্রই ফুটিয়ে তুলবেন স্বস্তিকা। অভিনেত্রী উবাচ, ডলি কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাঁর মতোই। তিনিও কাজ ছাড়া থাকতে পারেন না। কলকাতার অনেক ভিন্ন ভাষী এই চরিত্রের সঙ্গে নিজেকে মেলাতে পারবেন---'আর আমার কাছে ডলি এই জন্যেই আকর্ষণীয়, যে এর আগে বাংলা ছবিতে ভিন্ন ভাষী প্রধান নায়িকা চরিত্র এভাবে আসেনি। একই সঙ্গে স্বস্তিকাও উদগ্রীব অর্পিতার সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করতে।' পাশাপাশি, জানাতে ভুললেন না, তাঁর পছন্দের ফুল ড্যাফোডিল। ঘটনাচক্রে ছবিতে সেই ফুলের কাছাকাছি তাঁর চরিত্রের নাম, ডলি।

oj48toj8


ছবিতে দেবযানীর ছেলের ভূমিকায় দেখা যাবে অনুভব কাঞ্জিলালকে। যিনি অর্জুনের প্রথম ছবিতে অর্পিতার ছেলে হয়েছিলেন। কথায় কথায় অনুভব জানালেন, 'দুই মা দুই রকম। কিন্তু দুই মা-ই ভালো। এবং প্রথম ছবি থেকেই আমি বড় তারকাদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি। এই সুযোগ যাতে ভবিষ্যতে ইতিবাচক হয় সেই চেষ্টাই করব।' অর্পিতার স্বামী অর্ণব হয়েছেন ইশান মজুমদার। তিনি একইসঙ্গে উৎসাহিত এবং টেনশনে কাঁপছেন। অর্পিতার বিপরীতে অভিনয় করতে পেরে। জানালেন, 'ছবিতে আমি কর্পোরেট চাকুরে। অর্পিতা হাউসওয়াইফ। বরাবরই অর্পিতার কাজ আমার ভালো লাগে। নিজেকে তৈরি করতে আরও বেশি করে ওঁর অভিনয় দেখছি।' ছবির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র রিয়া-র ভূমিকায় দেখা যাবে অনুরাধা মুখোপাধ্যায়কে। অতিথি চরিত্রে থাকছেন অভিজিৎ গুহ।

রাতদিন ৫দিন সিনেমায় ডুব দিন, সৌজন্যে উত্তরবঙ্গ চলচ্চিত্র উৎসব

লাস্ট বাট নট দ্য লিস্ট, পরিচালক অর্জুন দত্ত। যিনি প্রথম ছবি থেকেই দর্শকদের প্রত্যাশাকে বাড়িয়ে দিয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই তাঁর দ্বিতীয় ছবি নিয়ে সবারই আগ্রহ থাকবে। অর্জুন যদিও খুব সহজ কথায় জানালেন, 'প্রথম ছবিতে মা-ছেলের সম্পর্কের কথা বলেছি। এবার বলব তিন নারীর কথা। যাঁরা ভিড়ে মিশে গিয়েও নিজেদের আলাদা পরিচিতি তৈরি করে নেয়। যাদের আমরা নিজেদের ঘরে হামেশাই দেখি। চেষ্টা করছি, সহজ কথা সহজে বলার। আশা করি, এই ছবিও সবার ভালো লাগবে। শুটিং হবে শুধুই কলকাতায়। ছবি ফ্লোরে যাবে সম্ভবত আগামী সেপ্টেম্বরে।'


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement