হোমটলিউড

শহরে ফিরেছে ভয়ঙ্কর সিরিয়াল কিলার খোকা?

  | December 15, 2019 20:28 IST (কলকাতা)
Dwitiyo Purush

রক্ত নদীতে স্নাত দ্বিতীয় পুরুষ (সৌজন্যে SVF)

ট্রেলার শুরুই হচ্ছে 'বাইশে শ্রাবণ'-এর রেশ নিয়ে। আগের ছবির প্রবীর রায়চৌধুরী ওরফে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের  আবৃত্তির রেশ ধরে। তারপরেই শহর জুড়ে খুনের পর খুন।

৯ বছর পরে আবার নিজের জঁরে পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। আরও হাড়হিম থ্রিলার 'Dwitiyo Purush' নিয়ে। সদ্য মুক্তি পাওয়া ট্রেলার বলছে 'Baishey Srabon'-এর সেই শিহরণ দ্বিগুণ আগামী ছবিতে। বিশেষ করে খোকা। তার সংলাপ, চাউনি, হাঁটাচলা, সাজপোশাক---- একদম একালের দাগী ক্রিমিনাল। সাঙ্গোপাঙ্গোরাও সেরকমই ভয়ানক। গলার নলি কাটতে যাদের হাত কাঁপে না। বা কাঠের ব্যাটনে খুলি দু'ফাঁক করতে। গায়ে যখন রক্তের ছিটে এসে লাগে, ওরা হিংস্র শ্বাপদের মতোই উল্লসিত। মানুষের জীবন ওদের কাছে যেন মুড়ি-মিছরি। দেখে নিন ট্রেলারে। অনলাইনে যার উদ্বোধন হয়েছে প্রিক্যুয়েলের প্রধান চরিত্র প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের হাতে:




ট্রেলার শুরুই হচ্ছে 'বাইশে শ্রাবণ'-এর রেশ নিয়ে। আগের ছবির প্রবীর রায়চৌধুরী ওরফে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের  আবৃত্তি দিয়ে। তারপরেই একের পর এক খুন। সিরিয়াল কিলার খোকা-র নেতৃত্বে। ঠিক ২৫ বছর আগে যেভাবে শহরে শুরু হয়েছিল সিরিয়াল কিলারের দাপট। তখনও তার দায়িত্ব পেয়েছিলেন ইন্সপেক্টর অভিজিৎ পাকড়াশি। এবারেও খোকাকে জেলের গারদে পোরার দায়িত্বে গোয়েন্দা প্রধান অভিজিৎ-ই। তাঁকে সাহায্য করবেন নতুন ইন্সপেক্টর গৌরব চক্রবর্তী।

আপনার-আমার আয়না ‘মিরাজ'

এমনই আরও মিল-অমিল পর্দা জুড়ে। পরমের মতো এবারেও থাকছেন রাইমা সেন, আবির চট্টেপাধ্যায়। অমৃতা আর সূর্য রূপে। সিক্যুয়েলে নতুনদের দলে বাবুল সুপ্রিয়, ঋতবান মুখোপাধ্যায়, কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়, গৌরব চক্রবর্তী, ঋদ্ধিমা ঘোষ এবং 'খোকা' অনির্বাণ ভট্টাচার্য।

সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের বড় গুণ, তিনি অভিনেতাদের নিজের তৈরি চরিত্রে আকণ্ঠ ডুবিয়ে নেন। এখানে সেই ঘটনা ঘটেছে অনির্বাণ ভট্টাচার্যের সঙ্গে। স্ক্রু কাট চুল। চওড়া ভ্রু সরু প্লাকিংয়ের সৌজন্যে। বারমুডা, টি-শার্ট। একুশের নষ্ট হয়ে যাওয়া প্রজন্মের প্রতিনিধি এই অনির্বাণকে একনজরে চিনতে সত্যিই কষ্ট হবে। সৃজিতের ছোঁয়ায় তাঁর যেন জন্মান্তর ঘটেছে। 

‘যা সিমরান যা, করলে আপনি PhD' ; কাকে বললেন সৃজিত?

নিজের ছবি নিজে সৃজিতের আগাম সতর্কবাণী, এই ছবি নরম মনের, তুলনায় ভীতু আর আস্তে গলায় কথা বলা মানুষদের জন্য নয়। এই ছবিতে উঠে এসেছে সমাজের অন্ধকার দিক। যা ঘাপটি মেরে বসে থাকে সুযোগের অপেক্ষায়। ঝোপ বুঝে কুপিয়ে রক্তগঙ্গা বইয়ে দেয় অনায়াসে। দ্বিতীয় পুরুষ দেখতে হলে মনকে লোহার বানাতে হবে।

এসভিএফের পক্ষ থেকে মহেন্দ্র সোনি জানিয়েছেন, থ্রিলার তৈরির মাস্টারপিস সৃজিত নতুন বছরে দর্শকদের আরও একটি মনে রেখে দেওয়ার মতো রহস্য-রোমাঞ্চ উপহার দিতে চলেছেন। এই ছবি দিয়ে ২০২০-র ছবির হালখাতা হচ্ছে প্রযোজক সংস্থারও। মুক্তি পাবে ২৩ জানুয়ারি। আর মাত্র ক'টা দিনের অপেক্ষা।


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
Advertisement
Advertisement
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com