হোমবলিউড

'সেক্সি' গানের নাচে হাঁটু কেটে ফেলেছিলেন! 'সেক্সি' তকমা জুটেছিল করিশ্মার?

অভিনয়ে আসা নিয়ে দাদু রাজ কাপুর তাঁকে কী পরামর্শ দিয়েছিলেন, সেকথাও গোপন করলেন না নয়ের দশকের দুরন্ত নায়িকা।

  | October 17, 2019 09:22 IST (নয়া দিল্লি)
Karisma Kapoor

সাদা-কালোর ক্যারিশ্মা (সৌজন্যে: ইনস্টাগ্রাম)

Highlights

  • সম্প্রতি করিশ্মা তাঁর কেরিয়ার নিয়ে মুয়ক খোলেন সংবাদ মাধ্যমে
  • তিনি তাঁর অভিনয় জীবন নিয়ে সাক্ষাৎকার দেন
  • "আমি জানতাম পারব", সাক্ষাৎকারে বলেন করিশ্মা

কোনোদিন নিজের কেরিয়ার নিয়ে, অভিনয় জীবন নিয়ে খুব বেশি মুখ খোলেননি কাপুর খানদানের এক এবং অদ্বিতীয় করিশ্মা কাপুর (Karisma Kapoor)। সম্প্রতি, নিজেকে মেলে ধরলেন এক সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে। নিজের কেরিয়ার নিয়ে তো বটেই, অভিনয়ে আসা নিয়ে দাদু রাজ কাপুর তাঁকে কী পরামর্শ দিয়েছিলেন, সেকথাও গোপন করলেন না নয়ের দশকের দুরন্ত নায়িকা। ১৯৯১-এ 'প্রেম কয়েদি' তাঁর প্রথম ছবি। প্রথম ছবিতেই কাপুর খানদানের অভিনয়-প্রতিভা দেখা গেছে তাঁর মধ্যে। জনপ্রিয়তার মধ্যগগনে থাকতে থাকতেই অভিনয় থেকে সরে বিয়ে করেছেন। যদিও সে বিয়ে সুখের হয়নি। সাক্ষাৎতার দিতে বসে তাই অভিনেত্রীর প্রথম কথা, সবাই ভাবেন গ্ল্যাম দুনিয়ার পথ বোধহয় গোলাপের পাপড়ি বিছানো। একেবারেই তা নয়। বরং অনেক কাঁটার আঘাত সহ্য করে পৌঁছতে হয় শিখরে। যদিও একথা নাকি অভিনয় জীবনের শুরুতেই তাঁকে জানিয়েছিলেন দাদু রাজ কাপুর। লাইট-সাউন্ড-ক্যামেরা-অ্যাকশন শব্দগুলো ছোট থেকেই তাঁকে টানত। রক্তে অভিনয় নিয়ে জন্মানো মেয়ে যে ভবিষ্যতে পারিবারিক ঐতিহ্য মেনে এপথেই হাঁটবেন, জানিয়েছিলেন দাদুকে। তখনই নাকি রাজ কাপুর (Raj Kapoor) সাবধান করে তাঁকে বলেছিলেন, 'কাঁটার মুকুট যদি পরতে পার, তাহলে এই দুনিয়ায় এসো'!

"পাশাপাশি, অভিনয় দুনিয়ায় আসতে সাহস জুগিয়েছেন মা ববিতা কাপুর। খুব সাদামাঠা ভাবে মা আমাদের বড় করেছেন। আমরা দুই বোন স্কুলে যেতাম স্কুল বাসে। কলেজ করেছি ট্রেনে চেপে। কোনোদিন লাক্সারি করতে দেননি। বরং বলতেন, মাটিতে পা রেখে চল। তাহলে ব্যর্থতা কোনোদিন তোমাদের ছুঁতে পারবে না। দক্ষিণী ছবির রিমেক দিয়ে অভিনয় জীবন শুরু করার সময়েও মা বলেছেন, তুমি তোমার ১০০ শতাংশ দাও। সাফল্য যেচে আসবে তোমার কাছে। মায়ের কথা ফলেছে" নিজের কথা বলতে গিয়ে জানিয়েছেন লোলো।

'প্রেম কয়েদি'র পর 'খুদ্দার' ছবিতে করিশ্মা 'সেক্সি সেক্সি সেক্সি মুঝে লোগ বলে', গানের সঙ্গে নেচে তুমুল সাড়া ফেলেছিলেন। করিশ্মার কথায়, 'গানের সঙ্গে নাচতে গিয়ে হাঁটু কেটেকুটে একসার। তবু কাজ বন্ধ রাখিনি।' এই গান যদিও তাঁকে 'সেক্সি' তকমা দিয়েছিল। যাঁর জন্য অভিনেত্রী নাকি মনখারাপ করে বসে থাকতেন। তখনও ববিতা তাঁর মেয়েকে বুঝিয়েছিলেন, অভিনেতার কাজ দর্শক বিনোদন। সেই কাজ করতে গিয়ে কে, কী বলল তাই নিয়ে মাথা ঘামালে চলবে না! 

অভিনেতা গোবিন্দার সঙ্গে তাঁকে জড়িয়েও একটা সময় বহু গসিপ তৈরি হয়েছিল। সেসবে কান না দিয়ে একের পর এক ছবিতে নিজেকে প্রমাণ করেছেন করিশ্মা। ১৯৯৭-এ তিনি মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতে দিল তো 'পাগল হ্যায়' ছবিতে অভিনয়ে রাজি হয়েছিলেন। বাকি নায়িকারা ভয়ে এই চরিত্রে অভিনয়ে রাজি হননি। করিশ্মা চ্যালেঞ্জ নিতে পেরেছিলেন বলেই অভিনয়ের জোরে এই ছবির জন্য জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন সেবছর। 


আমির খানের বিপরীতে 'রাজা হিন্দুস্থানি' ছবিতেও তাঁর অভিনয় দেখার মতো। তাঁর সময়ের প্রায় প্রত্যেক নায়কের সঙ্গে কাজ করে করিশ্মা দেখিয়ে দিয়েছেন, কাপুর খানদানের বেটিরাও পারে বলিউড শাসন করতে।

দেখুন করিশ্মার পোস্ট:


"Growing up, I used to visit my granddad on set-& his talent would leave me mesmerised. Once I was there when he was directing 'Ram Teri Ganga Maili'. I loved the sets, camera & lights! I knew I wanted to become an actor & contribute to the family legacy. When I told my granddad, he said, 'It's glamourous but it's not a bed of roses-you will have to work very hard.' That stayed with me. I wanted to act but my inner voice made me doubt myself. But what motivated me, was how grounded my mom kept me. Despite being from an 'illustrious' family, she made us live a simple life. My sister & I travelled by school bus & went to college by local trains. My mom taught me how to stick to my roots & still be confident enough. She knew about my passion for acting & about my hesitation. I didn't want to falter & let anybody down. But she said that until I try, I'd never know. That's when I signed my first film-a remake of a South Indian movie! While shooting, I gave my best. I had to 'make it' or 'break it'. And the movie was a success! As my career progressed, there were highs & lows. I had done a song called, 'Sexy Sexy'-I'd worked hard & even hurt my knees for it. I was appreciated for my dance, but people thought the song was way ahead of its time-the word 'Sexy' wasn't common back then. But that's when my mom said that it's an actors job to entertain. I can't let one roadblock affect it. Even on the bad days I had to keep my head held high. So even when I was offered 'Dil Toh Pagal Hai', when no actress wanted to be cast against Madhuri Dixit. I didn't want to shy away because 'I thought I couldn't do it'. I did the film & even won a National Award for it! From then on, whenever I've wondered if I was capable enough-be it in my choice of films, being a single mom or in my relationships, I've never let my doubts get the better of me. We live in a world where there will always be roadblocks, people to bog you down & things that may not work out. That's why you have to be your biggest strength & not let your voice, at any point, become your weakness." - HoB with POND'S encourages women to overcome their inhibitions & #SeeWhatHappens when they let go of their inner voices.

A post shared by Humans of Bombay (@officialhumansofbombay) on


নয়ের দশকে 'জিগর', 'আনাড়ি', 'রাজাবাবু', 'কুলি নং ১', 'সাজন চলে শ্বশুরাল', 'বিবি নম্বর ১', 'রাজা হিন্দুস্থানি', 'দিল তো পাগল হ্যায়'-এর মতো একের পর এক সুপারডুপার হিট ছবির নায়িকা ছিলেন করিশ্মা। তাঁর আর গোবিন্দার রসায়ন বহু ব্লকবাস্টার ছবির জন্ম দিয়েছে। ওয়েব সিরিজ 'মেন্টালহুড'-এও সম্প্রতি অভিনয় করতে দেখা গেছে তাঁকে।


বাংলা ভাষায় বিশ্বের সকল বিনোদনের আপডেটস তথা বাংলা সিনেমার খবর, বলিউডের খবর, হলিউডের খবর, সিনেমা রিভিউস, টেলিভিশনের খবর আর গসিপ জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube
 
Advertisement
Advertisement